ভারতে ধর্মীয় হানাহানি তীব্র : বিশ্বে চতুর্থ

  • 15741285_304নিউজ ডেস্ক:  ভারতে মারাত্মক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে ধর্মীয় হানাহানি। ২০১৪ সাল থেকে শুরু করে এর পরের দুই বছরে এই হানাহানি তীব্র আকারে রূপ নিয়েছে। আমেরিকার পিউ রিসার্চের করা সমীক্ষায় এই তথ্য প্রকাশিত হয়েছে। এই সংবাদ পরিবেশন করেছে হাফিংটন পোস্ট।

    পিউ রিসার্চের সমীক্ষায় উঠে এসেছে যে, ২০১৪ সালের পরবর্তী সময়ে ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে বৃদ্ধি পেয়েছে ধর্মীয় হিংসা। ২০১৫ সালের হিসেব অনুসারে ধর্মীয় হিংসার বিশ্বে চার নম্বর স্থানে উঠে এসেছে ভারত। সিরিয়া, নাইজেরিয়া এবং ইরাকের পরেই স্থান ভারতের। ২০১৪ সালে ষষ্ঠ লোকসভা নির্বাচনের পর নতুন সরকার গঠন হয়েছে ভারতে। সেই সময় থেকেই সাম্প্রদায়িক হিংসা বৃদ্ধি পেয়েছে বলে দাবি মার্কিন এই গবেষণা সংস্থার।

    ১৮ টি বিভিন্ন সূত্রের থেকে থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে গবেষণা চালিয়ে এই রিপোর্ট পেশ করেছে পিউ রিসার্চ। মার্কিন প্রশাসনের বিভিন্ন দফতর এবং রাষ্ট্র সংঘের থেকে পাওয়া রিপোর্টের উপর ভিত্তি করে চালানো হয়েছে গবেষণা। ১৮টি বিষয়ের মধ্যে ১৩ বিষয় রয়েছে যেখানে ধর্মের নামে হিংসায় লিপ্ত হয়েছে দুই সম্প্রদায়ের মানুষ।

    ধর্মীয় জঙ্গি সংগঠন এবং রাজনৈতিক স্বার্থে ধর্মীয় সংগঠনের ব্যবহার করে হামলার ঘটনাগুলিকেও নেওয়া হয়েছে গবেষণার আওতায়। ধর্মীয় পোশাক ফতোয়াবিধি থেকেও ধর্মীয় হিংসা ঘটেছে বলে জানা গিয়েছে পিউ রিসার্চের সমীক্ষায়।

    ধর্মীয় হিংসার নিরীখে বিভিন্ন দেশকে নম্বর দিয়েছে পিউ রিসার্চ সেন্টার। সেখানে লেটার মার্ক্স নিয়ে পাস করেছে ভারত। চতুর্থ স্থনাধিকারি ভারত দশের মধ্যে পেয়েছে ৮.৭। প্রথম স্থানে থাকা সিরিয়ার প্রাপ্ত নম্বর ৯.২। নাইজেরিয়া এবং ইরাক যথাক্রমে ৯.১ ও ৮.৯ পেয়ে দ্বিতীয় এবং তৃতীয় স্থানে রয়েছে। ৭.২ নম্বর নিয়ে দশম স্থানে রয়েছে পাকিস্তান।