ঢাকা, বুধবার, রাত ১০:৩৯ মিনিট, তারিখ: ৫ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং, ২৯শে জিলহজ্জ, ১৪৩৮ হিজরী
আবাসিক চরিত্র হারাচ্ছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় | deshnews.net

deshnews.net

আবাসিক চরিত্র হারাচ্ছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

মে ২৯
অপরাহ্ন ১২:৫৮ রবিবার ২০১৬

downloadসাভার, দেশনিউজ.নেট: ১৯৭৩ সালের প্রণীত অধ্যাদেশ অনুযায়ী জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) একটি স্বায়ত্বশাসিত উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে একমাত্র আবাসিক ক্যাম্পাস। জাবি অধ্যাদেশের ৪০ ধারায় বলা হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি শিক্ষার্থী আবাসিক হলে অবস্থান করবে। বিশেষ কোনো কারণ ছাড়া এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটের বিশেষ অনুমোদন ছাড়া কোনো শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসের বাইরে থাকতে পারবে না।

জাবির হলগুলোয় সিট বণ্টনের ক্ষেত্রে এ অধ্যাদেশের নিয়ম লঙ্ঘন করাই যেন বাস্তবতায় পরিণত হয়েছে। এর দায় প্রশাসনের বলেই মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। হলের সিটের চেয়ে কয়েক গুণ বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি করা, হলগুলোয় হল প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণ না থাকা ও আসন বণ্টনে রাজনৈতিক নিয়ন্ত্রণ— এ সমস্যার মূল কারণ বলে মনে করেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৪ হলের ৫টিতে ৪৪৯ শিক্ষার্থীর আসন খালি ছিল। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন মোট ১ হাজার ৯৯০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করে। এ হিসাবে হলের খালি আসন সংখ্যার পাঁচ গুণ শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়েছে।

বেগম খালেদা জিয়া হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক শামীমা সুলতানা বণিক বার্তাকে বলেন, ‘প্রথম বর্ষের ১৩৫ জনের মধ্যে ৬৩ জনকে বেগম সুফিয়া কামাল হলে নিয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে। এর পরও হলের সিট সংকট কমবে না। তবে সেশনজট, ছাত্রদের হলগুলোয় সিট বণ্টনে রাজনৈতিক নিয়ন্ত্রণ ও পুরনো শিক্ষার্থীদের হলে থাকার কারণে মূলত এ সমস্যা সৃষ্টি হয়। তবে এসব সমস্যার দিকে নজর দেয়া এবং আগামীতে শিক্ষার্থী কম ভর্তি করানো হলে সংকট কিছুটা দূর হবে।’

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে আল বেরুনী হলে ১৫০ জন, মওলানা ভাসানীতে ১৬৫, আ ফ ম কামাল উদ্দিনে ২০০, শহীদ রফিক জব্বারে ১৪০, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানে ১৫০, নওয়াব ফয়জুন্নেসায় ১২৬, বেগম খালেদা জিয়ায় ১৩৫ ও শেখ হাসিনায় ১৬১ জনকে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। অথচ বরাদ্দ দেয়ার আগে এসব হলে নতুন শিক্ষার্থীদের জন্য কোনো সিট খালি নেই বলে প্রাধ্যক্ষরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে অবগত করেছিলেন। কিন্তু এসব সমস্যা বিবেচনায় না নিয়ে হলগুলোয় নতুন শিক্ষার্থীদের সিট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

এদিকে জাহানারা ইমাম হলে ৯৩ জনের আসন ফাঁকা থাকার কথা জানানো হয়। অথচ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বরাদ্দ দিয়েছেন ১৩৬ জনকে। একইভাবে শহীদ সালাম বরকতে ১৩৯ জনের বিপরীতে ১৪৯, ফজিলাতুন্নেসায় ৫৩ জনের বিপরীতে ৩০, মীর মশাররফ হোসেনে ১০৪ জনের বিপরীতে ১৯০ জন এবং প্রীতিলতায় ৬০ জনের বিপরীতে ১৫৫ জন শিক্ষার্থীকে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনির্মিত সুফিয়া কামাল হলে ১৩০ জনকে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। অথচ ওই হলের নির্মাণকাজ ও আসবাবপত্র তৈরি না করে বরাদ্দ দেয়ায় বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন শিক্ষার্থীরা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক শিক্ষক জানান, বিশ্ববিদ্যালয়টি যেহেতু আবাসিক, তাই প্রত্যেক শিক্ষার্থীর হলে থাকা বাধ্যতামূলক। হলের আসন সংখ্যার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই শিক্ষার্থী ভর্তি করতে হবে। অথচ আবাসনের ব্যবস্থা না করে অপরিকল্পিতভাবে বিভিন্ন বিভাগ খোলা, হলগুলোয় সিটের অনুপাতে শিক্ষার্থী ভর্তি না করা, পোষ্যদের হলে অবস্থান, সিট বণ্টনে হল কর্তৃপক্ষের নিয়ন্ত্রণ না থাকা, ক্ষমতাসীন ছাত্র সংগঠনের আধিপত্য, শিক্ষা কার্যক্রমে গতিশীলতা না থাকা, যথাসময়ে বিভিন্ন শিক্ষাবর্ষ সমাপ্ত না হওয়াসহ সেশন জটের কারণে এ সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোয় ও হলের বাইরে কী পরিমাণ শিক্ষার্থী অবস্থান করছেন এবং বৈধ ও অবৈধ শিক্ষার্থী আছেন, সে বিষয়ে হল প্রশাসনের কাছে সঠিক পরিসংখ্যান নেই বলেও জানা গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকটি হলে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীদের একজনের কক্ষে দুজন, দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীদের দুজনের কক্ষে ছয় ও চারজনের কক্ষে সাত থেকে আটজনকে থাকতে হচ্ছে। তবে ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের অবস্থা আরো ভয়াবহ। বরাদ্দ অনুযায়ী একটি কক্ষের মেঝেতে বিশেষ করে কমন রুম, টিভি রুম ও হলের ছাত্রসংসদে গাদাগাদি করে থাকতে হচ্ছে তাদের। সেখানে নেই শিক্ষার পরিবেশ। এছাড়া ক্ষমতাসীন ছাত্রসংগঠনের অনুগত কর্মীদের বিরুদ্ধে সাধারণ শিক্ষার্থীদের নির্যাতনের অভিযোগও আছে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মো. আবুল হোসেনকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

শেখ হাসিনা হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ফরিদ আহমেদ বলেন, সেশনজটসহ বিভিন্ন কারণে সিট সংকট আছে। তবে আমার হলে যে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে, তার মধ্যে নবনির্মিত সুফিয়া কামাল হলে ১০৩ জনকে নিয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে। তার পরও ৪১ ব্যাচ তার শিক্ষা কার্যক্রম সম্পন্ন না করা পর্যন্ত এ সংকট কমবে না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কেন্দ্রীয় ভর্তি পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব ও ডেপুটি (শিক্ষা) রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ আলী বলেন, হলগুলোর আসনের সঙ্গে নয়, বরং বিভাগের শ্রেণীকক্ষের আসনের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়ে থাকে। এ কারণেই হলের সিট সংকট কমছে না।

একই ধরণের সংবাদ

পাঠকের মন্তব্য (০)

আপনার ইমেইল একাউন্ট প্রকাশ করা হবে না
‘অবশ্যই প্রয়োজনীয়’ ক্ষেত্রসমূহ চিহ্নিত করা আছে *

ইউরোপের সংবাদ

ইতালিতে ভূমিকম্পে নিহতের সংখ্যা এ পর্যন্ত ২৪৭

ইতালিতে ভূমিকম্পে নিহতের সংখ্যা এ পর্যন্ত ২৪৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ইতালির মধ্যাঞ্চলে গতকাল বুধবারের শক্তিশালী ভূমিকম্পের ঘটনায় নিহত ব্যক্তির সংখ্যা […]

অামেরিকা-কানাডার সংবাদ

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে পরোয়ানার প্রতিবাদ কানাডা বিএনপি’র

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে পরোয়ানার প্রতিবাদ কানাডা বিএনপি’র

কানাডা প্রতিনিধি:  নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা গ্রেফতারী পরোয়ানা প্রত্যাহার কর-কানাড[…]

মালয়েশিয়ার সংবাদ

মালয়েশিয়ায় মাদ্রাসায় আগুনে ২৫ জন নিহত

মালয়েশিয়ায় মাদ্রাসায় আগুনে ২৫ জন নিহত

নিউজ ডেস্ক:  মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে একটি মাদ্রাসায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে অন্তত ২৫ জন নিহত হয়েছেন। স্থা[...]

প্রবাসের আরো সংবাদ

ইইউ বিচ্ছেদে অভিবাসী বাংলাদেশীরা চাপে পড়বে : প্রভাব পড়বে বাংলাদেশেও

ইইউ বিচ্ছেদে অভিবাসী বাংলাদেশীরা চাপে পড়বে : প্রভাব পড়বে বাংলাদেশেও

কূটনৈতিক সংবাদদাতা : ইউরোপীয় জোটের ৪৩ বছরের বাঁধন ছিঁড়ে বেরিয়ে গেল ব্রিটেন। ইইউতে থাকা না থাকা নিয়ে [...]

ইসলামী দল/সংগঠন

কওমী সনদের স্বীকৃতি চাই নিজস্ব স্বকীয়তা বজায় রেখে- ছাত্র মজলিস কেন্দ্রীয় সভাপতি

কওমী সনদের স্বীকৃতি চাই নিজস্ব স্বকীয়তা বজায় রেখে- ছাত্র মজলিস কেন্দ্রীয় সভাপতি

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসের কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মদ আজীজুল হক বলেন, ‘কওমী মাদ[...]

বিনোদন

কলকাতা-ঢাকা নৌপথে ভারতের বিলাসবহুল জাহাজ

কলকাতা-ঢাকা নৌপথে ভারতের বিলাসবহুল জাহাজ

ঢাকা: কলকাতা থেকে ঢাকা যাতায়াত আরো উপভোগ্য করতে বিলাসবহুল জাহাজ (লাক্সারি ক্রুজ) সার্ভিস চালু করতে যাচ্ছে ভারত। এ লক্ষ্যে দুই[...]
টিভিতে শো করে বোনের বিয়ে দেবেন কিম জং, আছে শর্তও

টিভিতে শো করে বোনের বিয়ে দেবেন কিম জং, আছে শর্তও

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, দেশনিউজ.নেট : উত্তর কোরিয়ার প্রবল পরাক্রমী একনায়ক কিম
গরমে ঠান্ডা থাকুন

গরমে ঠান্ডা থাকুন

ক্রমেই বাড়ছে তাপমাত্রা। যেন মরুভূমির আবহাওয়া। জীবনযাত্রা হয়ে উঠছে কষ্টসাধ্য।
সূচনাতেই জয়ের মুকূট

সূচনাতেই জয়ের মুকূট

নিজস্ব প্রতিবেদক: ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) তৃতীয় ম্যাচে কিংস এলেভেন
কারিনার শর্ত মেনেই বিয়ে করেন সাইফ

কারিনার শর্ত মেনেই বিয়ে করেন সাইফ

বিনোদন ডেস্ক : সাড়ে তিন বছর হল গাঁটছড়া বেঁধেছেন সাইফ

মিডিয়া

'সাংবাদিক সমাজ ঐক্যবদ্ধ হলেই এবিএম মূসার প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হবে'

'সাংবাদিক সমাজ ঐক্যবদ্ধ হলেই এবিএম মূসার প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হবে'

নিজস্ব প্রতিবেদক:  ১৯৪৭ সালের পরে আমাদের দেশে সকল ক্ষেত্রে যে নতুন ঔজ্জল্য দেখা দিয়েছিল, সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে যারা নতুন উদ্যোগ নিয়েছিলেন,[...]

সংগঠন/কর্পোরেট সংবাদ

৭০ শতাংশ করারোপের দাবি সিগারেটসহ অন্যান্য তামাকদ্রব্যের ওপর

৭০ শতাংশ করারোপের দাবি সিগারেটসহ অন্যান্য তামাকদ্রব্যের ওপর

নিজস্ব প্রতিবেদক: আসন্ন বাজেটে সিগারেট, বিড়ি, জর্দা ও গুলসহ সব ধরনের তামাকজাত পণ্যের ওপর ৭০ শতাংশ কর[...]

No posts available

বিজ্ঞান- তথ্যপ্রযুক্তি

ইন্টারনেটের ছোঁয়ায় বদলে গেলো জীবন

ইন্টারনেটের ছোঁয়ায় বদলে গেলো জীবন

চীনের উইঘুর মুসলিম অধ্যুষিত সিনচিয়াংয়ের একটি গ্রাম। নাম তার আকসুপা। প্রাচীন সিল্ক রোডের একটি আউটপোস্ট ছিল একদা এই গ্রাম। রাজধানী[...]

লাইফস্টাইল

ঘামের দুর্গন্ধ প্রতিরোধের উপায়

ঘামের দুর্গন্ধ প্রতিরোধের উপায়

নিউজ ডেস্ক :  গরমকাল পড়লেই অনেক সমস্যা হুট করেই এসে হাজির হয়। ব্রণের সমস্যা, গরমে ঘেমে নাজেহাল হওয়ার সমস্যা, মেকআপ[...]