চিকিৎসাসেবা নিতে গিয়ে প্রতিবছর দরিদ্র হচ্ছে দেশের ৬৪ লাখ মানুষ

1নিজস্ব প্রতিবেদক: চিকিৎসাসেবা নিতে গিয়ে বাংলাদেশে প্রতিবছর প্রায় ৬৪ লাখ মানুষ দরিদ্র হয়ে পড়ছে। একই সঙ্গে বহু মানুষ ক্যান্সার ও কিডনি বিকল হওয়ার মতো রোগের চিকিৎসা ব্যয় মেটাতে পারছে না। সোমবার রাজধানীর মহাখালীর আইসিডিডিআরবিতে শুরু হওয়া স্বাস্থ্যবিষয়ক এক বৈজ্ঞানিক সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। সম্মেলনের প্রথম দিনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পাবলিক হেলথ ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশের চেয়ারম্যান অধ্যাপক এম মুজাহেরুল হক বলেন, বাংলাদেশে যথেষ্ট সংখ্যক স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান, চিকিৎসক ও অন্যান্য কর্মী থাকলেও নাগরিকরা প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যসেবা পাচ্ছে না।
সম্মেলনের প্রথম দিন মূল নিবন্ধ উপস্থাপন করেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ। তিনি বলেন, ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপের মতো রোগের চিকিৎসা গ্রহণের জন্যও বাংলাদেশের মানুষের আর্থিক সক্ষমতা যথেষ্ট নয়। এই জন্য রোগ প্রতিরোধের ওপর অধিক গুরুত্ব দেয়া উচিত। একই সঙ্গে বলেন, বাংলাদেশে বর্তমানে যতটুকু স্বাস্থ্যসেবার সুবিধা রয়েছে, সেটুক কাজে লাগিয়ে সবার জন্য স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে হবে। সম্মেলনের প্রথম দিন বাংলাদেশে স্বাস্থ্যসেবা পরিস্থিতি, শিশুস্বাস্থ্য, সংক্রামক ও অসংক্রামক ব্যাধি এবং পরিবেশগত স্বাস্থ্যসহ বিভিন্ন বিষয়ে আরও ২৫টি গবেষণা প্রতিবেদন ও নিবন্ধ উপস্থাপন করা হয়। এর মধ্যে একটি গবেষণা প্রতিবেদনে দেখা যায়, ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে মাদক গ্রহণকারীদের মধ্যে ২৭ দশমিক ৬ শতাংশ অন্যের ব্যবহৃত সূঁচের সাহায্যে মাদক নেন। এর ফলে তারা এইচআইভি/এইডস ও হেপাটাইটিস বি-এর মতো সংক্রামক ব্যাধিতে আক্রান্ত হওয়ার উচ্চ মাত্রার ঝুঁকির মধ্যে পড়েন। হেপাটাইটিস বি বিষয়ে মানুষের জ্ঞান, দৃষ্টিভঙ্গি ও চর্চা মূল্যায়নের লক্ষ্যে নর্দার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ ঢাকার একটি চিকিৎসাকেন্দ্রে দেড়শ রোগীর ওপর চলতি বছর একটি গবেষণা চালায়। গবেষণা শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনস্বাস্থ্য বিভাগের শিক্ষক ডা. সাজিয়া হক তার প্রতিবেদন তুলে ধরেন।