শিরোনাম :

  • সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আলোচিত রিফাত হত্যা: রিশান ফরাজী ৫ দিনের রিমান্ডে

বরগুনা প্রতিনিধি: বরগুনায় আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যার ঘটনায় করা মামলার তিন নম্বর আসামি রিশান ফরাজীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ দিনের রিমান্ডে দিয়েছে আদালত। 

পুলিশের করা ৭ দিনের রিমান্ড আবেদনের প্রেক্ষিতে শুক্রবার (১৯ জুলাই) শুনানি শেষে বরগুনার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক মো. সিরাজুল ইসলাম গাজী আসামির ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। 

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বরগুনা থানার পরিদর্শক হুমায়ূন কবীর গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন। 

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) সকাল ১০টার দিকে বরগুনার পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. শাহজাহান হোসেনের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে রিশান ফরাজীকে গ্রেফতার করা হয়। 

রিশান ও তার ভাই রিফাত ফরাজী আলোচিত এ হত্যা মামলার প্রধান আসামি সাব্বির আহম্মেদ ওরফে নয়ন বন্ডের অন্যতম সহযোগী। রিশান ও রিফাত ফরাজী বরগুনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেনের ভায়রার ছেলে। 

এর আগে পুলিশ দুই সপ্তাহ আগে মামলার দুই নম্বর আসামি রিফাত ফরাজীকে গ্রেফতার করলেও গত ২ জুলাই ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নয়ন বন্ড নিহত হওয়ার খবর জানায় পুলিশ। 

এদিকে রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী ও নিহত রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি স্বামীর হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছিলেন বলে পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন। গতকাল বরগুনার বিচারিক হাকিম মো. সিরাজুল ইসলাম গাজী মিন্নিকে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছেন। 

এর আগে গত মঙ্গলবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে বরগুনা পৌরসভার মাইঠা এলাকার নিজ বাসা থেকে মিন্নিকে পুলিশ লাইনে নেয়া হয়। প্রায় ১১ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদের পর রাতে তাকে গ্রেফতার দেখায় পুলিশ। ওই রাতেই এসপি মো. মারুফ হোসেন রিফাত হত্যায় মিন্নির জড়িত থাকার বিষয়টি ইঙ্গিত করেন। 

প্রসঙ্গত, গত ২৬ জুন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাত শরীফকে সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এই ঘটনার একটি ভিডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে দেশজুড়ে ব্যাপক আলোড়ন তৈরি হয়