শিরোনাম :

  • সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আসামের অর্থমন্ত্রীর বক্তব্য পাত্তা দিচ্ছে না আওয়ামী লীগ

নিজম্ব প্রতিবেদক: আসামের অর্থমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা যখন বলছেন এনআরসি থেকে বাদ পড়া ব্যক্তিদের ফিরিয়ে নিতে বাংলাদেশের সঙ্গে কথা বলা হবে। তখন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, আসামের অর্থমন্ত্রী এক কথা বলছেন আবার পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী আরেক কথা বলছেন৷ এটা পরিপূর্ণ ভাবে ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এটা নিয়ে আওয়ামী লীগ এখনই মন্তব্য করে চায় না।

সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগের সভাপতি রাজনৈতিক কার্যালয়ে চীন সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে দলের পক্ষে  এ মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুল মতিন খসরু। 

তিনি বলেন, ‘আসামের বিষয়টি ভারতের পূর্ণ অভ্যন্তরীণ বিষয়। এই মুহূর্তে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আমরা কোনো মন্তব্য করতে চাচ্ছি না। আসামের অর্থমন্ত্রী বলছেন ফেরত পাঠানো হবে, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী বলছেন এটা ঠিক নয়। আমরা মনে করি এটি সম্পূর্ণভাবে তাদের আভ্যন্তরীণ বিষয়। এখনই আমরা এ বিষয়ে মন্তব্য করতে চাচ্ছি না। সম্পূর্ণ বিষয়টি আমরা পর্যবেক্ষণ করছি।’

রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীন চাইলেই সমাধান সম্ভব মন্তব্য করে এসময় সাবেক এ আইনমন্ত্রী বলেন, ‘চীনা কমিউনিস্ট পার্টি যে বক্তব্য দেবে সেটাই তাদের সরকারের বক্তব্য। চীন সফরে আমরা রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে তাদের যথাযথ ভূমিকা রাখার জন্য অনুরোধ করবো। যেন এই রোহিঙ্গারা সসম্মানে নিরাপত্তার সঙ্গে তাদের দেশে ফিরে যেতে পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘অত্যন্ত মানবিক কারণে আমরা তাদের আশ্রয় দিয়েছিলাম। কিন্তু আমরা এমনিতেই ওভার পপুলেটেড কান্ট্রি। কক্সবাজারে আমাদের জনসংখ্যা মাত্র ৪ লাখ, সেখানে রোহিঙ্গারা এসে রয়েছে ১১ লাখ। তাদের কারণে আমাদের পরিবেশগত বিপর্যয় ঘটছে। এখন সমগ্র ওয়ার্ল্ড কমিউনিটি চাচ্ছে রোহিঙ্গারা তাদের দেশে ফিরে যাক। এজন্য যথাযথ ভূমিকা প্রয়োজন মিয়ানমার গভমেন্টের। মিয়ানমার গভমেন্ট এর সঙ্গে সংক্রান্ত একটি চুক্তিও আমাদের হয়েছে। চীন যদি যথাযথ ভূমিকা পালন করে তাহলে রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরে যাওয়ার বিষয়টি সহজ হবে।’

এর আগে তিনি জানান, আগামীকাল মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) চীনা কমিউটিস্ট পার্টির আন্তর্জাতিক বিভাগের আমন্ত্রণে ২০ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল নিয়ে চীন সফরে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর, ক্রীড়া সম্পাদক হারুনুর রশীদ, উপ-দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য মেরিনা জাহান প্রমুখ।