• রবিবার, ১৯ মে, ২০১৯

জামায়াত আমীরসহ ৮ শীর্ষ নেতা ১০ দিনের রিমান্ডে

FB_IMG_1507646485099নিজস্ব প্রতিবেদকঃ রাজধানীর উত্তরা থেকে গ্রেফতার করা হলেও কদমতলী থানায় দায়ের করা বিস্ফোরক ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে জামায়াতের আমির মকবুল আহমাদসহ আট জনকে ১০ দিন করে রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (১০ অক্টোবর) ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক গোলাম নবী এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রাজধানীর উত্তরার একটি বাসায় গোপনে বৈঠক ও নাশকতার পরিকল্পনা করার অভিযোগে সোমবার (৯ অক্টোবর) সন্ধ্যায় জামায়াতে ইসলামীর আমির মকবুল আহমাদসহ আট জনকে আটক করে পুলিশ।

একই অভিযোগে গত শুক্রবার (২৯  সেপ্টেম্বর) বিকালে দলটির ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আমির নূরুল ইসলাম বুলবুলসহ আট নেতাকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ।

ওই ঘটনায় পরদিন (৩০ সেপ্টেম্বর) কদমতলি থানায় বিস্ফোরক ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে দু’টি মামলা দায়ের করা হয়। সেই মামলায় সোমবার রাতে গ্রেফতার দেখানো হয় জামায়াতের আমির মকবুল আহমাদ ও সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানসহ আরও আট নেতা-কর্মীকে। মঙ্গলবার (১০ অক্টোবর) আদালতে হাজির করা হয় জামায়াতের এসব কেন্দ্রীয় নেতাকে।

FB_IMG_1507634960692ভজামায়াতের আমির ও সেক্রেটারি জেনারেল ছাড়াও সোমবার রাতে গ্রেফতার হওয়া দলের অন্য নেতারা হলেন-জামায়াতের নায়েবে আমির মিয়া গোলাম পরওয়ার, চট্টগ্রাম মহানগর আমির মোহাম্মদ শাজাহান ও সেক্রেটারি জেনারেল নজরুল ইসলাম, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার আমির জাফর সাদেক এবং কেন্দ্রীয় সেক্রেটারি জেনারেলের ব্যক্তিগত সহকারী নজরুল ইসলাম ও সাইফুল ইসলাম।

যে দু’টি মামলায় জামায়াত নেতাদের গ্রেফতার দেখানো হয়েছে, সেই দু’টি মামলার তদন্ত করছেন কদমতলী থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) সাজু মিয়া। তিনি বলেন, ‘গ্রেফতার ব্যক্তিদের প্রত্যেকের জন্য দুই মামলায় ১০ দিন করে ২০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছিল। অন্যদিকে, আসামি পক্ষের আইনজীবী আবদুর রাজ্জাক রিমান্ড বাতিল চেয়ে তাদের জামিন প্রার্থনা করেছিলেন। পরে শুনানি শেষে আদালত জামিন আবেদন নাকচ করে প্রত্যেকের পাঁচ দিন করে দুই মামলায় ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এদিকে, মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে ভারপ্রাপ্ত আমির অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বলেন, ‘সরকার বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীসহ সব বিরোধী দলকে নেতৃত্বশূন্য করে দেশকে একদলীয় শাসনের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে গত ৯ অক্টোবর রাতে জামায়াতে ইসলামীর নেতাদের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করে তাদের বিরুদ্ধে সাজানো মিথ্যা মামলা দিয়ে, প্রত্যেককে ১০ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। সরকারের এ ধরনের অন্যায়, অগণতান্ত্রিক ও স্বৈরাচারী আচরণের নিন্দা জানানোর কোনও ভাষা নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘জামায়াতে ইসলামীর নেতাদের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার , মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদের রিমান্ডে নিয়ে সরকার মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে। কোনও সভ্য গণতান্ত্রিক দেশে এ ধরনের অন্যায় আচরণ কল্পনাও করা যায় না। সরকারের এ অন্যায় ও অমানবিক আচরণে আমরা বিস্মিত ও মর্মাহত।’