শিরোনাম :

  • রবিবার, ১৬ জুন, ২০১৯

বুথ ফেরত সমীক্ষা প্রত্যাখ্যান করে মমতাঃ এবার বিজেপি হারবেই

নিউজ ডেস্কঃ ভারতের ৫৪৩ আসনের লোকসভা নির্বাচনের শেষ দফার ভোটগ্রহণ করা হয় আজ রোববার। এ দিন পশ্চিমবঙ্গে ৯টি আসনে ভোট নেওয়া হয়। ভোটের পালা শেষ হতেই বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেল শুরু করে বুথ ফেরত সমীক্ষা বা এক্সিট পোলের ফল প্রকাশ।

বুথ ফেরত এ সব সমীক্ষায় ইঙ্গিত দেওয়া হয়, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি মতো রাজ্যের সব আসন (৪২) আর পাওয়া হচ্ছে না। মমতার ঘোষণাই ছিল, এই রাজ্যে বিরোধীদলকে তিনি শূন্যে নামিয়ে আনবেন। কিন্তু বুথ ফেরত সমীক্ষায় ইঙ্গিত মিলছে, এই রাজ্যে এবার বিজেপি এবার ২টি আসন থেকে দুই অঙ্কের সংখ্যায় উঠে আসবে। বরং বামদলগুলো কোনো আসনই পাবে না। কোনো সমীক্ষাতেই বামদের এই রাজ্যে কোনো আসন দেওয়া হয়নি।

এবিপি নিউজ ও এসি নিয়েলসনের বুথ ফেরত সমীক্ষায় ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল তৃণমূল কংগ্রেস পেতে চলেছে ২৪টি আসন। বিজেপি ১৬টি। আর কংগ্রেস দুটি আসন। বাম দল পাচ্ছে না একটি আসনও। টাইমস নাউ ও ভিএমআর বলছে তৃণমূল পাচ্ছে ২৮টি আসন। আর বিজেপি ১১টি এবং কংগ্রেস ২টি আসন। এই সংস্থা অন্যান্যদের জন্য একটি আসন রেখেছে। অন্যদিকে সি-ভোটার ইঙ্গিত দিয়েছে তৃণমূল ২৯, বিজেপি ১১ ও কংগ্রেস ২টি আসন পাবে। সিএমএক্স বলেছে, তৃণমূল ২৬, বিজেপি ১৪ ও কংগ্রেস ২টি আসন। ইন্ডিয়া টুডের হিসেবে তৃণমূল ১৯-২২, বিজেপি ১৯-২৩ এবং কংগ্রেস ০–১টি আসন পেতে পারে। সব সমীক্ষায় একটাই মিল, বামদলগুলোর জোট এবার লোকসভায় কোনো আসন পাচ্ছে না।

এদিকে বুথ ফেরত সমীক্ষায় ইঙ্গিত দিয়েছে জঙ্গিপুরে সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের পুত্র অভিজিৎ মুখার্জি, রায়গঞ্জে সিপিএম প্রার্থী মহম্মদ সেলিম, কংগ্রেস প্রার্থী দীপা দাসমুন্সি, মুর্শিদাবাদে সিপিএম প্রার্থী বদরুদ্দোজা খান, বালুরঘাটে তৃণমূল প্রার্থী অর্পিতা ঘোষ, ব্যারাকপুর বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিং, আসানসোলে বিজেপির বাবুল সুপ্রিয়, কলকাতা উত্তরে বিজেপির রাহুল সিনহা, মেদিনীপুরে তৃণমূলের মানস ভূঁইয়া, বাঁকুড়ায় মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় প্রমুখ হারতে চলেছেন।

অন্যদিকে জয়ের সম্ভবনা আছে বহরমপুরে কংগ্রেস প্রার্থী অধীর চৌধুরী, মালদা দক্ষিণে আবু হাসেম খান চৌধুরী, দার্জিলিংয়ে বিজেপি প্রার্থী রাজু বিস্ত, বালুরঘাটে বিজেপি প্রার্থী সুকান্ত মজুমদার, মালদা উত্তরে বিজেপির খগেন মুর্মু, মুর্শিদাবাদে বিজেপির প্রার্থী হুমায়ুন কবির, রানাঘাটে বিজেপি প্রার্থী জগন্নাথ সরকার, বনগাঁয় তৃণমূল প্রার্থী মমতাবালা ঠাকুর, জঙ্গিপুরে তৃণমূল প্রার্থী খলিলুর রহমান, রায়গঞ্জে তৃণমূল প্রার্থী কানাইলাল আগরওয়াল, আলিপুরদুয়ারে বিজেপি প্রার্থী জনবারলা, কোচবিহারে বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক, শ্রীরামপুরে তৃণমূল প্রার্থী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়, হাওড়ায় বিজেপি প্রার্থী সাংবাদিক রন্তিদেব সেনগুপ্ত, উলুবেড়িয়ায় তৃণমূলের সাজদা আহমেদ, আরামবাগে বিজেপির তপন রায়, তমলুকে তৃণমূলের দিব্যেন্দু অধিকারি, কাঁথি তৃণমূলের শিশির অধিকারী, ঝাড়গ্রামে বিজেপির কুনার হেমব্রম, মেদিনীপুরে বিজেপির দিলীপ ঘোষ, পুরুলিয়ায় বিজেপির জ্যোতির্ময় মাহাত, বাঁকুড়ায় বিজেপির সুভাষ সরকার, বিষ্ণুপুরে বিজেপির সৌমিত্র খাঁ, বোলপুরে তৃণমূলের অসিত মাল, দমদমে তৃণমূলের সৌগত রায়, বারাসাতে তৃণমূলের কাকলি ঘোষ দস্তিদার, জয়নগরে তৃণমূলের প্রতিমা মন্ডল, মথুরাপুরে তৃণমূলের সিএম জাটুয়া, ডায়মন্ডহারবারে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা দক্ষিণে তৃণমূলের মালা রায়, কলকাতা দক্ষিণে তৃণমূলের সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের জয়ের ইঙ্গিত দিয়েছে।

জিততে চলেছে ৫ অভিনেত্রী ও এক অভিনেতা: হুগলিতে বিজেপির লকেট চট্টোপাধ্যায়, আসানসোলে তৃণমূলের মুনমুন সেন, বীরভূমে তৃণমূলের শতাব্দী রায়, বসিরহাটে তৃণমূলের নুসরাত জাহান এবং যাদবপুরে তৃণমূলের মিমি চক্রবর্তী আর ঘাটালে অভিনেতা দেব জিতবেন বলে বুথ ফেরত ভোট সমীক্ষায় বলা হচ্ছে।

বুথ ফেরত সমীক্ষা প্রত্যাখ্যান করেছেন মমতা
এদিকে বিভিন্ন সংস্থার বুথ ফেরত সমীক্ষা প্রকাশ করার পর তা প্রত্যাখ্যান করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেছেন, ‘আমি বিশ্বাস করি না এক্সিট পোল। ওরা ইভিএম যন্ত্র নিয়ে কারসাজি করতে পারে। তাই ইভিএম যন্ত্র স্ট্রং রুমে পাহারার ওপর জোর দিতে হবে, যাতে ইভিএম যন্ত্র বদল করতে না পারে। আমাদের এর বিরুদ্ধে এক জোট হয়ে লড়তে হবে।’ মমতা বলেন, ‘এবার বিজেপি হারবেই। ওরা গুজব ছড়িয়ে মিথ্যাকে সত্য করতে চাইছে। এর বিরুদ্ধে আমাদের রুখে দাঁড়াতে হবে।’