‘মার্কিন ইটের জবাব পাটকেলে দিয়ে তুরস্ক প্রতিরোধ করবে’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা কেনার কথা পুনর্ব্যক্ত করে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসুগ্লু বলেছেন, যে পরিণতি হোক না কেন তুরস্ক এ চুক্তি থেকে পিছু হটবে না। পাশাপাশি এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র কোনো নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলে তুরস্কও পাল্টা পদক্ষেপ নেবে বলে হুশিয়ারি করেন তিনি।

শুক্রবার তুরস্কের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আনাদোলুতে সম্প্রচারিত এক সাক্ষাতকারে অংশ নিয়ে তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। খবর টিআরটি অ্যারাবিকের।

তিনি বলেন, এস-৪০০ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র কোনো পদক্ষেপ নিলে তুরস্কও বসে থাকবে না। বরং তুরস্ক ইটের জবাব পাটকেলে দিয়ে প্রতিরোধ করবে।

রাশিয়ার সঙ্গে করা চুক্তিটি এখন বাতিল করা অসম্ভব জানিয়ে মেভলুত চাভুসুগ্লু বলেন, এস-৪০০’র ব্যাপারে তুরস্ক দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। যুক্তরাষ্ট্র এ ব্যাপারে যতোই আপত্তি করুক, আমরা তাদের মত গ্রহণ করতে পারি না।

একটি দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে অন্যদেশের হস্তক্ষেপের মানসিকতা তুরস্কের কাছে গ্রহণযোগ্য নয় বলে জানান তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এর আগে গত বুধবার তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান বলেছেন, রাশিয়ার তৈরি উন্নত প্রযুক্তির বিমান প্রতিরক্ষাব্যবস্থা এস-৪০০ কেনার জন্য মস্কোর সঙ্গে করা চুক্তিটি একটি ‘সম্পন্ন চুক্তি’। এটি ক্রয়ের ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে যে হুশিয়ারি দেয়া হয়েছে, তা আবারও প্রত্যাখ্যান করেন তিনি।

প্রসঙ্গত এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও তুরস্কের মধ্যে কয়েকমাস ধরেই টানাপোড়েন চলছে।

যুক্তরাষ্ট্রের আপত্তি সত্ত্বেও ২০১৭ সালে তুরস্ক রাশিয়া থেকে এস-৪০০ বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা ক্রয়ের চুক্তি করে।

এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও তুরস্কের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। সম্প্রতি কয়েক মাসে আংকারা রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্রের বিভিন্ন যন্ত্রপাতি গ্রহণ করতে থাকে। এ বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা আগামী জুলাই মাসে রাশিয়ার থেকে গ্রহণ করবে তুরস্ক।

এদিকে রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা কেনার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে তুরস্ককে সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

আগামী জুলাইয়ের মধ্যে তুরস্ককে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে হবে যে, তারা রাশিয়ার বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র প্রযুক্তি এস-৪০০ নিবে, নাকি মার্কিন যুদ্ধ বিমান এফ-৩৫ কিনবে।

তুর্কি প্রতিরক্ষামন্ত্রী হুলুসি আকারকে চিঠির মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী প্যাট্রিক শানাহান এ সিদ্বান্তের কথা জানিয়ে দিয়েছেন।

তুরস্ক একই সঙ্গে দুটি অর্থাৎ যুক্তরাষ্ট্রের এফ-৩৫ অত্যাধুনিক জেট ফাইটার এবং রাশিয়ার এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র সিস্টেম পেতে পারে না বলে ওই চিঠিতে স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেয়া হয়েছে।