পোলট্রি খাতে পাঁচ হাজার কোটি টাকার নতুন বিনিয়োগের আশা

ipss-copy-300x242আতাউর রহমান মারুফ ঃ পোল্ট্রি খাতে পাচঁ হাজার কোটি টাকার নতুন বিনিয়োগ আসবে বলে ধারণা করছেন সম্ভাবনাময় এ খাতের ব্যবসায়ী নেতারা। পোল্ট্রি ব্যবসায়ীরা জানান, পোল্ট্রি মাংস ও ডিম রপ্তানির জন্য উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার। অভ্যন্তরীন চাহিদা মিটিয়ে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে পোল্ট্রি পন্য রপ্তানির সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। এ সম্ভাবনা কাজে লাগানোর জন্য এরই মধ্যে বেশ কিছু পদক্ষেপও গ্রহণ করা হয়েছে। ঢাকায় তিনদিনব্যাপী আন্তর্জাতিক পোলট্রি শোর সমাপনী অনুষ্ঠানে এসব আশাবাদের কথা জানান এ খাতের উদ্যোক্তারা।
পোল্ট্রি শিল্পে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সমন্বয় ঘটিয়ে পুষ্টি ও প্রাণিজ আমিষের চাহিদা পূরণের লক্ষ্য নিয়ে ১১ তম আন্তর্জাতিক পোল্ট্রি শো শেষ হয়েছে শনিবার। তিন দিনব্যাপী এ মেলা প্রতিদিন সকাল সাড়ে ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত জমজমাট ছিল দর্শনার্থীদের ভিড়ে। ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় মেলার আয়োজন করে পোলট্রি ব্যবসায়ীদের সংগঠন। পোলট্রি শো উপলক্ষে কয়েকটি সেমিনারও অনুষ্ঠিত হয়।  বিশ্বের ২২ টি দেশের প্রায় ৫ শত প্রতিনিধি এসব সেমিনারে অংশগ্রহণ করেন বলে উদ্যোক্তাদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। আফতাব ফিড, প্রভিটা ফিড, নীলসাগর গ্রুপ, ফ্রিক ইন্ডিয়া কোং, ইউনিক এগ্রো টেক, নর্থ ইস্ট এসোসিয়েশন, এ্যাডভান্স এনিমেল সায়েন্স কোং লিঃ, ডায়মন্ড চিক লিঃ, সানওয়ার্ড কোংসহ অনেক প্রতিষ্ঠান এই শো এবং সেমিনারে অংশগ্রহণ করে। গোটা আয়োজনকে আকর্ষণীয় করতে দর্শনার্থীদের ছিল পোল্ট্রি কুকিং কনটেস্ট, ডিম সেলফি, চিকেন সেলফি প্রতিযোগিতা সহ লাইভ কুকিং শোসহ নানা আয়োজন।
এছাড়াও পোলট্রি শোতে প্রদর্শন করা হয় পোল্ট্রি শিল্পে ব্যবহার যোগ্য সকল প্রকার অত্যাধুনিক মেশিনারিজ এবং সকল প্রকার গবাদি পশুর খাদ্য সামগ্রী। কুকিং কনটেস্টে বিপুল সংখ্যক প্রতিযোগীর মধ্যে নানা ধাপ পেরিয়ে চূড়ান্ত পর্বে অংশগ্রহণ করে ৫০ জন। তাদের মধ্য থেকে ১০ জন প্রতিযোগী সুযোগ পান সরাসরি মঞ্চে তাদের নিজস্ব রেসেপি রান্না করার। এর মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করেন সোনিয়া হক, দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেন ফাতেমা জাহান এবং তৃতীয় স্থান অধিকার করেন উম্মে হাবিবা। প্রথম বিজয়ী পান ২০ হাজার টাকা, দ্বিতীয় বিজয়ী ১৫ হাজার টাকা এবং তৃতীয় বিজয়ীকে দেওয়া হয় ১০ হাজার টাকা। বাকি সাতজন প্রতিযোগীকে বিশেষ পুরস্কার হিসেবে ৫ হাজার টাকা করে প্রদান করা হয়।
এছাড়াও চিকেন সেলফি কনটেস্ট বিজয়ী এবং ডিম সেলফি কনটেস্ট বিজয়ীদের মধ্যেও পুরস্কার বিতরণ করা হয়। কনটেস্ট এ বিচারক ছিলেন অধ্যাপক ফাতিমা সুরাইয়া, রন্ধনশিল্পী কল্পনা রহমান ও আল্পনা হাবিব। লাইভ কুকিং শো পরিবেশন করেন দেশের স্বনামধন্য মাষ্টার শেফ ডানিয়েল সি গোমেজ।
সভাপতি শামসুল আরেফিন খালেদ বলেন “বর্তমান সময়ে পোল্ট্রি হচ্ছে শরীরের পুষ্টির অন্যতম উৎস।  সংস্থাটির অন্য সহ-সভাপতি জাহিদুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান ‘প্রথাগত অভ্যাস অনুযায়ী শুধু ভাত দিয়ে শরীরের পুষ্টির চাহিদা পূরণ করা সম্ভব নয় । এ ক্ষেত্রে পোল্ট্রি মাংস ও ডিমের ব্যবহার বাড়াতে হবে। প্রতিদিন খাদ্য তালিকায় পোল্ট্রি মাংস ও ডিম রাখতে হবে।
শনিবার এই পোল্ট্রি শো শেষ হয়েছে। সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন একই মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. রইছউল আলম মন্ডল। এছাড়াও অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. আলী আকবর, বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মাহফুজুল হক।