• মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২৩

‘একাত্তরের চেয়েও খারাপ অবস্থায় আছি আমরা’

নিজস্ব প্রতিবেদক ▪️

মানবাধিকার কর্মী সুলতানা কামাল বলেছেন, ‘একাত্তরের চেয়েও খারাপ অবস্থায় আছি আমরা। কিছুদিনের মধ্যেই এ দেশ সুন্নি মুসলিম অধিকারের দেশ হবে। সুন্নি পুরুষ ছাড়া অন্য কারও অধিকার থাকবে না এ দেশে। আর নারীরা থাকবে সেবা ও সন্তান জন্ম দেওয়ার জন্য। সাম্প্রদায়িকতার কাছে আমরা আত্মসমর্পণ করে ফেলেছি।’

বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন আয়োজিত আলোচনা সভায় এ সব কথা বলেন সুলতানা কামাল।

সুলতানা কামাল বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তি ক্ষমতায় থেকেও তারা তাদের আদর্শ থেকে বিচ্যুত হয়েছে। এখনকার রাজনীতিবিদেরা নিজে যা বলেন তা বিশ্বাস করেন না। তাঁরা ভয়ে অসহিষ্ণুতার নীতি গ্রহণ করেছেন। অনৈতিকতার বিরুদ্ধে কেউ কথা বলছেন না। দেশে আজ মানুষ গায়েব হয়ে যাচ্ছে। মানুষের অধিকার হরণ করছে। কেউ কাউকে মারলেও পুলিশ ভুক্তভোগীকে সহায়তা করে না। কারণ অপরাধীদের সঙ্গে তাদের সংযোগ আছে। তাই সামাজিক শক্তির অন্যতম দায়িত্ব— রাষ্ট্রকে চাপ প্রয়োগ করতে হবে, জবাবদিহির আওতায় আনতে হবে। এ জন্য সম্মিলিত শক্তির উদ্ভব ঘটাতে হবে।’

এই মানবাধিকারকর্মী বলেন, ‘দেশে এখন শিক্ষা-দীক্ষাসহ সবকিছু চলে দায়সারাভাবে। সবাই সন্তানদের একটিই শিক্ষা দেন— কী করে টাকা বানানো যায়। এ কারণেই সামাজিক অবক্ষয় হচ্ছে। সবার একটাই চাওয়া— আমাকে প্রতিষ্ঠিত হতে হবে। আজ সংখ্যালঘু হামলাকারীরা গ্রামে গ্রামে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। দেশে টিপ বিক্রেতা ফেরিওয়ালারাও গোপনে টিপ বিক্রি করে। তারা বলে, আজকাল প্রকাশ্যে টিপ বিক্রি করতে পারি না।’

আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন— সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সভাপতি রামেন্দু মজুমদার, সংগঠনের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. সৈয়দ আব্দুল্লাহ আল মামুন চৌধুরী, ইতিহাসবিদ ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, মানবাধিকার কর্মী খুশি কবীর, অধ্যাপক এমএম আকাশ, ড. সারোয়ার আলী, অধ্যাপক রুবাইয়াত ফেরদৌস প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email