অবিলম্বে মুক্তি দাবি

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তিন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা ও গ্রেফতারে বিএফইউজে’র উদ্বেগ, নিন্দা

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ঠাকুরগাঁওয়ে সাংবাদিক তানভীর হাসান তানুকে গ্রেফতারে গভীর উদ্বেগ, নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে)। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে সাংবাদিক তানুর মুক্তি, মামলা প্রত্যাহার এবং স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিপন্থী কালো আইন বাতিলের দাবি জানিয়েছেন।
বিএফইউজে সভাপতি এম আবদুল্লাহ ও মহাসচিব নুরুল আমিন রোকন এক বিবৃতিতে বলেন, হাসপাতালে বরাদ্দের বিপরীতে করোনা আক্রান্ত রোগীদের কম টাকার খাবার পরিবেশন করা হচ্ছে- এমন সংবাদ প্রকাশের জেরে ডিজিটাল আইনে করা মামলায় দৈনিক ইত্তেফাক, ইনডেপেনডেন্ট টেলিভিশন ও জাগোনিউজ ২৪ ডটকমের ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি তানভীর হাসান তানুকে শনিবার গ্রেফতার করা হয়েছে। একই মামলায় বাংলাদেশ প্রতিদিনের আব্দুল লতিফ ও নিউজবাংলা টোয়েন্টিফোর ডটকমের জেলা প্রতিনিধি রহিম শুভকে আসামি করা হয়েছে। আরো উদ্বেগজনক বিষয় হচ্ছে, গ্রেফতারের পর পুলিশি হেফাজতে সাংবাদিক তানু অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে হাসাপাতালে পাঠানো হয়েছে। যেখানে হাতকড়া পড়া অবস্থায় হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে থাকার ছবি গণমাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছে।
বিএফইউজের দপ্তর সম্পাদক তোফায়েল হোসেন স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, দুর্নীতি ও অনিয়ম সংক্রান্ত সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিককে গ্রেফতারের ঘটনা সরকারের দুর্নীতি বিরোধী ‘জিরো টলারেন্স’ নীতির কেবল পরিপন্থী নয়, একই সঙ্গে এটি স্বাধীন সাংবাদিকতার জন্য হুমকি। তাছাড়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রণয়নের শুরু থেকে সাংবাদিক সমাজ আশঙ্কার কথা প্রকাশ করে এ কালো আইন বাতিলের দাবি জানিয়ে আসছিল। কিন্তু সরকার আইনটি পাশের সময় সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ব্যবহার না করার প্রতিশ্রæতি দিয়েছিল। অথচ সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে যথেচ্ছভাবে এ নিপীড়নমূলক আইন ব্যবহার হচ্ছে। অন্যদিকে এ আইন দুর্নীতিবাজদের রক্ষাকবচ হয়ে ওঠেছে। -খবর বিজ্ঞপ্তির

Print Friendly, PDF & Email