• মঙ্গলবার, ৯ আগস্ট, ২০২২

সিম্পোজিয়ামে প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা

আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহারে দক্ষ জনসম্পদ তৈরিতে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে

‘আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্ট (এআই) হবে আমাদের আগামী দিনের ভবিষ্যত। এক্ষেত্রে নার্সিং শিক্ষায় সিমুলেশন ল্যাব হবে এর উপযুক্ত সমাধান। সেজন্য আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহারে দক্ষ ও অভিজ্ঞ জনসম্পদ তৈরির ক্ষেত্রে উদ্যাক্তাদের আরও বেশি বিনিয়োগে উৎসাহিত করতে হবে।’  ১২ জুন রোববার ঢাকায় ‘নার্সিং শিক্ষায় অংশীদারিত্বমূরক সহযোগিতা’ বিষয়ক সিম্পোজিয়ামে প্রধান অতিথি বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রীর অর্থনীতি বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান এসব কথা বলেন।

আয়াত এডুকেশন-এর উদ্যোগে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ঢাকার গুলশানের হোটেল ওয়েস্টিনের গ্রান্ড বলরুমে এ সিম্পোজিয়াম অনুষ্ঠিত হয়। এতে দেশীয় ও আন্তর্জার্তিক পর্যায়ের বিশিষ্ট গবেষক ও বিশেষজ্ঞরা তাদের অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরেন। যুক্তরাষ্ট্রের সিমন্স বিশ্ববিদ্যালয়, ম্যাচাচুসেট্স জেনারেল হাসপাতাল এবং ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড এর সহযোগিতায় নার্সিং শিক্ষায় অংশিদারিত্বমুলক সহযোগিতা বৃদ্ধি লক্ষ্যে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সর্বশেষ স্বাস্থ্য বুলেটিন (২০১৯) অনুসারে, দেশে প্রতি দশ হাজার মানুষের জন্য নার্স রয়েছে মাত্র ৩.০৬ জন। অথচ আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে এ সংখ্যা ২১.০৭ জন এবং শ্রীলঙ্কায় ২১.১৫ জন। তাছাড়া দেশে বিশেষায়িত নার্সিং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও যোগ্যতাসম্পন্ন কর্মীর অভাব এবং আধুনিক শিক্ষা ও প্রযুক্তির অনুপযুক্ততার কারণে মানসম্পন্ন নার্সিং শিক্ষা প্রদান এখনও একটি বড় সমস্যা হিসেবে রয়ে গেছে। অন্যদিকে বাংলাদেশে প্যালিয়েটিভ কেয়ারের ব্যাপক প্রয়োজনীয়তা থাকলেও এই চাহিদা পূরণে আমাদের পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধা ও জনবলের যথেষ্ট অভাব রয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশ সরকারের একার পক্ষে এসব অভাব ও শূন্যতা পূরণ করা সম্ভবপর নয়। তাই বাংলাদেশে প্যালিয়েটিভ কেয়ার এবং মানসম্পন্ন নার্সিং শিক্ষাকে এগিয়ে নিতে বেসরকারি সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানগুলোকে এগিয়ে এসে সরকারের সাথে একযোগে কাজ করতে হবে। তবেই অনগ্রসর এ খাতকে সামনে আরও এগিয়ে নেওয়া সম্ভব হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় ঢাকা ব্যাংকের চেয়ারম্যান আব্দুল হাই সরকার বলেন, দেশের স্বাস্থ্য খাতে উন্নতি করতে অনেককিছু করতে হবে। আয়াত এডুকেশনের শুধু একার পক্ষে এ লক্ষ্য পূরণ করা সম্ভব নয়। এ জন্য সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের এগিয়ে এসে আয়াত এডুকেশনের মিশন বাস্তবায়নে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি। আয়াত এডুকেশনের সহযোগী হিসেবে কাজ করতে পেরে ঢাকা ব্যাংক গর্ববোধ করে উল্লেখ করে ভবিষ্যতে এ সহযোগিতা অব্যাহত রাখার আশা ব্যক্ত করেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান।

আয়াত এডুকেশন ২০১৮ সালে “ডিগনিফাইং লাইফ” প্রকল্পটি শুরু করে দক্ষ ও অভিজ্ঞ নার্স এবং প্যালিয়েটিভ কেয়ার সেবার ক্রমবর্ধমান চাহিদার আলোকে বাংলাদেশে নার্সিং পেশাকে একটি মর্যাদাপূর্ণ জায়াগায় নিয়ে যাওয়া প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। যার অন্যতম উদ্দেশ্য, চিকিৎসক ও নার্সদের সক্ষমতা বৃদ্ধির মাধ্যমে এ খাতে পদ্ধতিগত পরিবর্তন আনা, নতুন প্রজন্মের তরুণ ও যুবকসহ সাধারণ জনগণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করা এবং জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মধ্যে অভিজ্ঞতা বিনিময় করা। এ লক্ষ্যে আমরা এ পর্যন্ত আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন অফ কলেজ অফ নার্সিং-এর সাথে অংশীদারীত্বমূলক সহযোগিতায় ‘এন্ড-অফ-লাইফ-কেয়ার (ঊখঘঊঈ)’ সার্টিফিকেট প্রোগ্রামে প্রায় দেশের ৫০০ জন নার্স, ২২০ জন চিকিৎসককে প্যালিয়েটিভ কেয়ার ব্যবস্থাপনার উপরে প্রশিক্ষন প্রদান করেছি। এছাড়া বাংলাদেশের এ খাতের নীতিগত সমস্যা নিয়ে আলোচনা করতে বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারি-বেসরকারি ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সাথে দুটি গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করেছে আয়াত এডুকেশন। আমাদের সবচেয়ে বড় সাফল্য হচ্ছে- সঠিক পরামর্শমূলক প্রচারণার কারণে, দেশের ৮টি বিভাগেই প্যালিয়েটিভ কেয়ার ইউনিট স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

‘নার্সিং শিক্ষায় অংশীদারিত্বমূরক সহযোগিতা’ বিষয়ক উক্ত সিম্পোজিয়ামে মূল প্রবন্ধে হার্ভার্ড বিশ^বিদ্যালয়ের মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও এমজিএইচ গ্লোবাল হেল্থ বাংলাদেশ প্রোগ্রামের পরিচালক ড. বিমলাংশু দে বাংলাদেশে নার্সিং শিক্ষার প্রসারে ব্যাপক সম্ভাবনার বিষয় তুলে ধরেন। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, গ্রামীণ ফোনের সিইও ইয়াসির জামান, যুক্তরাষ্ট্রের সিমন্স বিশ্বিবিদ্যালয়ের ন্যাচারাল বিহ্যাবিয়ার এন্ড হেল্থ সায়েন্স কলেজের প্রফেসর ইমেরিটাস ও ক্লিনিক্যাল নার্স স্পেশালিস্ট এন্ড ফ্যাকাল্টি নার্স সাইন্টিস্ট আন্যে ম্যারী ব্যারন, এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন এর উপাচার্য ড. রুবানা হক, ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড এর চেয়ারম্যান আব্দুল হাই সরকার, যুক্তরাষ্ট্রের ঢাকাস্থ এ্যাম্বাসীর ডেপুটি চীফ অব মিশন হেলেন লাফেভ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্যে আয়াত এডুকেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) নুসরাত আমান দেশে নার্সিং শিক্ষা প্রসার ও সংশ্লিষ্টদের প্রশিক্ষণ দিয়ে দক্ষ ও অভিজ্ঞ হিসেবে গড়ে তোলার ব্যাপারে আয়াত এডুকেশনের কার্যক্রম তুলে ধরেন। সমাপনী বক্তব্য সবাইকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে আয়াত এডুকেশনের চেয়ারম্যান তাহসিন আমান বলেন, নার্সিং শিক্ষা ও প্যালিয়েটিভ কেয়ারের পরিধি সমৃদ্ধ করতে আয়াত এডুকেশনের চুড়ান্ত লক্ষে পৌছাতে সবার অকুণ্ঠ সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি বলেন, এটা এমন একটা লক্ষ্য যা পূরণে বিভিন্ন মহলের সহযোগিতা প্রয়োজন। এজন্য তিনি শিল্প কারখানার কর্ণধার ও উদ্যাক্তাদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে সঙ্গিত পরিবেশন করেন, বিশিষ্ট রবীন্দ্র শিল্পী শামা রহমান।

-খবর বিজ্ঞপ্তি’র

Print Friendly, PDF & Email