শিরোনাম :

  • শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

নয়াপল্টনে ককটেলে বিস্ফোরণ, বিএনপি অফিসের ভেতরে-বাইরে দু’পক্ষের অবস্থান

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের পাশে ছয়টি ককটেল বিস্ফোরণ হয়েছে। সোমবার (২৪ জুন) দুপুর দেড়টার দিকে হক’স বে’র সামনে এই ঘটনা ঘটে। বিস্ফোরণের সময় ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীদের একটি মিছিল নয়াপল্টন কার্যালয়ের সামনে থেকে বিজয় নগরের দিকে যাচ্ছিলো।

ককটেল বিস্ফোরণ ঘটনায় বিএনপির একটি সিন্ডিকেটকে দায়ী করছেন সদ্য ছাত্রদলের বহিষ্কৃত কমিটির সহসভাপতি ইখতিয়ার কবির। তিনি বলেন, ‘ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধ নেতারা অবস্থান কর্মসূচি শেষে চলে আসার পথে ককটেল বিস্ফোরণে কেন্দ্রীয় সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আল আশরাফ মামুন আহত হয়েছেন। এ হামলার জন্য সিন্ডিকেট দায়ী।’

এ ব্যাপারে পল্টন থানার এসআই সেলিনা পারভীন জানান, ‘কারা ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে তা জানা যায়নি। আশপাশের এলাকায় পুলিশ তল্লাশি করছে। বিএনপি অফিসের সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।’

এর আগে বেলা সাড়ে ১১টা থেকে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার ও বয়সসীমা না করে ধারাবাহিক কমিটি গঠনের দাবিতে নয়াপল্টন কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করেন ছাত্রদলের বহিষ্কৃত নেতারা ও তাদের অনুসারীরা। বিক্ষোভ চলাকালে বেলা সাড়ে ১২টার দিকে বিএনপি সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন কার্যালয়ে ভেতরে প্রবেশ করতে চাইলে তাকে বাধা দেওয়া হয়। কার্যালয়ে প্রবেশ করতে না পেরে ফিরে যান মিলন। এসময় বিলুপ্ত কমিটির যুগ্ম সম্পাদক ওমর ফারুক মুন্না বলেন, ‘আমাদের কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে। শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করছি। কিন্তু একটি পক্ষ অপ্রীতিকর ঘটনা চাচ্ছে। কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে সিন্ডিকেট দায়ী থাকবে।’