সমকামিতা ও জেনার অপরাধে পাথর মেরে হত্যার শাস্তি কার্যকর করতে যাচ্ছে ব্রুনাই

আন্তরর্জাতিক ডেস্কঃ  দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার রাজতান্ত্রিক ইসলামী দেশ ব্রুনাই এক নতুন আইনে আগামী সপ্তাহ থেকে সমকামিতা ও জেনার অপরাধে পাথর মেরে হত্যার শাস্তি কার্যকর করতে যাচ্ছে । আগামী ৩ এপ্রিল থেকে আইটি কার্যকর করা হবে। ইসলামী শরিয়াহ্ আইন অনুযায়ী নির্দিষ্ট সংখ্যক সাক্ষীর সাক্ষ্য প্রমানের ভিত্তিতে আইটির প্রয়োগ করা হবে।

 

ব্রুনাইর সুলতান হাসানাল বল্কিয়াহ ২০১৪ সালে দেশটিতে ইসলামী শরিয়াহ্ আইনের ভিত্তিতে নতুন আইন প্রনয়ন করেন যা ধীরে ধীরে কার্যকর করা হচ্ছে। এর আগে দেশটিতে এ্যালকোহল নিষদ্ধ ও  চুরির অপরাধে হাত কাটে শাস্তির আইন প্রনয়ন করা হয়। পশ্চিমা মানবাধিকার সংগঠনগুলো এই কঠোর আইনের বিরোধিতা করে দেশটির ব্যাপক সমালোচনা ও নিন্দা জানিয়ে যাচ্ছে।

ব্রুনাই এর ছবির ফলাফল

 

শান্তি প্রিয় নয়নাবিরাম এ দেশটি বোর্নিও দ্বীপের উত্তর উপকূলে অবস্থিত। এর উত্তরে দক্ষিণ চীন সাগর, এবং বাকী সব দিকে মালয়শিয়া। ব্রুনাই তেল সম্পদে সমৃদ্ধ একটি ধনী রাষ্ট্র। ১৯৬০-এর দশকের শেষ দিকে এটি এই অঞ্চলের একমাত্র দেশ হিসেবে ব্রিটিশ উপনিবেশ হিসেবে থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। ১৯৮৪ সালে এসে দেশটি স্বাধীন হয়। যার বর্তমান জনসংখ্যা ৪,৫০,০০০ কিছু বেশি। ব্রুনাই দুইটি আলাদা এলাকা নিয়ে গঠিত। এদের মধ্যে পশ্চিমেরটি বৃহত্তর। দুই এলাকাতেই সমুদ্র বন্দর আছে। তবে দুইটিকেই মালয়শিয়ার সারাওয়াক প্রদেশ ঘিরে রেখেছে। বন্দর সেরি বেগাওয়ান ব্রুনাইয়ের রাজধানী। ব্রুনাইয়ের আয়তন মাত্র ৫,৭৬৫ বর্গকিলোমিটার।